Policy Research Institute - PRI Bangladesh

The Policy Research Institute of Bangladesh (PRI) is a private, nonprofit, nonpartisan research organization dedicated to promoting a greater understanding of the Bangladesh economy, its key policy challenges, domestically, and in a rapidly integrating global marketplace.

বাস্তবায়ন হয় না বলেই বড় বাজেট দেওয়া হয়

View

News Published: Sunday, May 28, 2017

প্রথম আলো

প্রাক্‌–বাজেট ২০১৭–১৮

বাস্তবায়ন হয় না বলেই বড় বাজেট দেওয়া হয়

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৮ মে ২০১৭, ০০:২৭

প্রিন্ট সংস্করণ

 

http://paimages.prothom-alo.com/contents/cache/images/0x412x1/uploads/media/2017/05/28/adcf317b4417fc47fa846f07960513e2-5929c34fac508.jpg

আকবর আলি খান সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা আকবর আলি খান বলেছেন, ‘বাংলাদেশে বাজেট বাস্তবায়ন হয় না, এ জন্যই বড় বাজেট দেওয়া হয়। প্রশ্ন হচ্ছে, যেসব প্রকল্প নিয়ে বাজেটের আকার বড় হচ্ছে, এসব প্রকল্প যুক্তিযুক্ত কি না। অর্থনৈতিক বিবেচনায় এসব প্রকল্প বাস্তবায়নযোগ্য কি না। আমার ধারণা, অনেক প্রকল্পই অর্থনৈতিক বিবেচনায় হচ্ছে না, বিশেষ করে বড় প্রকল্প। ফলে এর সুবিধা জনগণ পাবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। কারণ, এসব প্রকল্প উৎপাদনক্ষম নয়।’


গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) উদ্যোগে ‘জাতীয় বাজেট ২০১৭-১৮: শেষ মুহূর্তের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনায় আকবর আলি খান এসব কথা বলেন। গতকাল শনিবার পিআরআই কার্যালয়ে আলোচনাটি সঞ্চালনা করেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর।


আকবর আলি খান বলেন, বাংলাদেশের বাজেটে কোনো শৃঙ্খলা নেই। সংসদে বাজেট পাস নিছক আনুষ্ঠানিকতা। এতে জনমতের কোনো প্রতিফলন নেই। বাজেট আলোচনায় সংসদ সদস্যরা বিভিন্নজনের প্রশংসা করেই সময় পার করেন। বাজেট নিয়ে প্রকৃত কোনো আলোচনা করেন না। বাংলাদেশের বাজেটের মৌলিক পরিবর্তন প্রয়োজন।
আয়কর প্রসঙ্গে আকবর আলি খান বলেন, আয়কর প্রশাসনের ওপর করদাতাদের আস্থা নেই। আয়কর বাড়ার পেছনে অবদান ছিল দুই বছরের সামরিক শাসনের। সেই প্রভাব কেটে যাচ্ছে, ফলে আয়কর আদায় কমছে।
মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) প্রসঙ্গে আকবর আলি খান বলেন, বাংলাদেশে করের ওপর কর আদায় দূর করতে ভ্যাট ব্যবস্থা এসেছে। ভ্যাট ১৫ শতাংশ অন্য রাষ্ট্রের তুলনায় বেশি নয়। তবে দেশের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের কোনো নথিপত্র-হিসাব নেই। এটাই ভ্যাট আইন চালুর বড় সমস্যা।


আকবর আলি খান বলেন, দুই দশক আগেই স্পষ্ট হয়েছে, সরকারের পক্ষে ব্যাংক পরিচালনা করা সম্ভব নয়। রাজনৈতিক দলগুলোর স্বার্থহানি হবে, তাই এসব ব্যাংক বেসরকারীকরণ করা হচ্ছে না। ব্যাংকগুলোর পর্ষদে ইচ্ছে করেই ভালো লোকদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে না।

 

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অর্থ উপদেষ্টা এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, এত বড় বাজেটের যৌক্তিকতা কী? রপ্তানি ও প্রবাসী আয়ে শ্লথগতি চলছে। হাওরের বন্যায় চাল উৎপাদন কমবে, ফলে বাজেটে কৃষি খাতের অবদান কমে আসবে। বেসরকারি খাতের ঋণও কমছে। রাজস্ব আহরণ বাড়লেও আয়কর আদায় কমছে। এতেই প্রমাণ মিলছে, প্রকৃত শিল্পের অবস্থা ভালো নয়। কাঁচামাল আমদানি কমলেও মূলধনি যন্ত্রপাতি আমদানি বাড়ছে। এর মাধ্যমে অর্থ পাচার হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন।

মির্জ্জা আজিজ বলেন, চলতি অর্থবছরে যে রাজস্ব আয় হয়েছে, বাকি সময়ের মধ্যে কোনোভাবেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব নয়। সরকারি ব্যাংকগুলো নিজস্ব ব্যবস্থার মাধ্যমে চলবে, মুনাফা করবে। কিন্তু উল্টো জনগণের করের টাকায় ব্যাংকগুলো চলছে। এ খাতের দক্ষতা ও সুশাসন বাড়াতে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

ইনস্টিটিউট অব ইনক্লুসিভ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইএনএম) নির্বাহী পরিচালক মুস্তাফা কে মুজেরী বলেন, ‘বাজেটে কিছু অস্বস্তি থাকবেই। এসব দূর করতে কী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে, এটা বড় বিষয়। ৭ দশমিক ২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের কথা বলা হচ্ছে, অর্থনীতির অন্য সূচকের সঙ্গে তা ঠিক মিলছে না। একমাত্র অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন তো আমাদের লক্ষ্য নয়, এই অর্জন অন্তর্ভুক্তিমূলক কি না, সেটা দেখতে হবে।’

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল মজিদ বলেন, ভ্যাট হার ১৫ শতাংশ রেখে স্তর ঠিক করা উচিত। সর্বনিম্ন করসীমা ৩০ লাখ থেকে ৫ কোটি করার দাবি জানাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। এ সীমা বাড়ানো হলে অনেকে করের বাইরে চলে যাবে। এতে ভোক্তা কোনো সুবিধা পাবে না।

এনবিআরের সাবেক সদস্য আলী আহমেদ বলেন, ভ্যাট কেউ দেবে, কেউ অব্যাহতি পাবে—এসব বিধান বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে।

পিআরআইয়ের চেয়ারম্যান জায়েদী সাত্তার বলেন, গত ১৫ বছরের মধ্যে ১২ বছরই চলতি হিসাব উদ্বৃত্ত ছিল, এটা ভালো লক্ষণ নয়। দেশে সঠিক বিনিয়োগ হচ্ছে না।

ট্যারিফ কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান বলেন, বাজেট বড় কি না, এটা বড় বিষয় না; প্রশ্ন হচ্ছে সরকার বাজেট বাস্তবায়ন করতে পারবে কি না। এসএমই খাতের খাতের ওপর কর তুলে দেওয়াটা ভালো উদ্যোগ হবে।

সাবেক বাণিজ্যসচিব সোহেল আহমেদ চৌধুরী বলেন, আমলাদের দক্ষতা প্রতিবছরই কমছে। ভারতে ভ্যাটের চার স্তর করা হলে বাংলাদেশে দুই স্তর হতে কোনো সমস্যা নেই।

আহসান এইচ মনসুর বলেন, ভ্যাট আদায়ে এক লাখ ইলেকট্রনিক মেশিন ক্রয় দামে ব্যবসায়ীদের দেওয়া হচ্ছে। ঘরে বসেই রেজিস্ট্রেশন হচ্ছে। আগামী বছর থেকে ঘরে বসেই আয়কর দেওয়া যাবে। ব্যবসায়ীরা এসব ভালো উদ্যোগ দেখেন না।

 

Speech