Policy Research Institute - PRI Bangladesh

The Policy Research Institute of Bangladesh (PRI) is a private, nonprofit, nonpartisan research organization dedicated to promoting a greater understanding of the Bangladesh economy, its key policy challenges, domestically, and in a rapidly integrating global marketplace.

তৈরি পোশাকশিল্পের স্বার্থে ১০ দফা সংস্কার প্রস্তাব

News Published: Sunday, Jun 09, 2013

তৈরি পোশাকশিল্পের স্বার্থে ১০ দফা সংস্কার প্রস্তাব 

নিজস্ব প্রতিবেদক | তারিখ: ৩১-০৫-২০১৩

2013-05-30-17-26-47-51a78bd71569a-untitled-15দেশের তৈরি পোশাকশিল্পের স্বার্থে ১০ দফা সংস্কারের প্রস্তাব করা হয়েছে। এসবের মধ্যে আছে সাভারের রানা প্লাজা ধসের পর তাৎক্ষণিক নিরাপত্তাব্যবস্থা, কারখানার শ্রেণীবিন্যাস, কারখানার নিরাপত্তা ও কর্মপরিবেশের মান ইত্যাদি।

এই প্রস্তাবে আরও আছে বিজিএমইএর দায়দায়িত্ব নির্ধারণ, পোশাক খাতের নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠন, পোশাক খাতের সংস্কারে অর্থায়ন, শ্রমিকের ন্যূনতম মজুরি বৃদ্ধি, শ্রমিক সংঘ গঠন, শ্রমিকদের নতুন কল্যাণ তহবিল গঠন ও আন্তর্জাতিক প্রচারণা।

ঢাকার একটি হোটেলে গতকাল মেট্রোপলিটন চেম্বার ও বাংলাদেশ এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের সহযোগিতায় পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআই) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এসব প্রস্তাব দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী জি এম কাদের প্রধান অতিথি এবং প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতিবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এশিয়ান টাইগার ক্যাপিটাল পার্টনারসের ইফতি ইসলাম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এতে রানা প্লাজা-পরবর্তী পো শাক খাতের একটি পথনকশা তুলে ধরা হয়।

জি এম কাদের বলেন, সংস্কার প্রস্তাবের অনেকগুলোই কমবেশি বাংলাদেশে বিদ্যমান। যেমন কারখানার শ্রেণীবিন্যাস বিষয়ে ২০০৭ সাল থেকেই একটি কমিটি কাজ করছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের পোশাকশ্রমিকদের মজুরি অনেক কম। তাঁদের শ্রমিক সংঘ করার অধিকার দিতে হবে।

মসিউর রহমান বলেন, দায়দায়িত্ব একতরফাভাবে শুধু বাংলাদেশি পোশাক প্রস্তুতকারকদের নয়; রপ্তানিকারক ও আমদানিকারক উভয়েরই দায়িত্ব আছে।

পিআরআইয়ের নির্বাহী পরিচালক আহসান মনসুর বলেন, সরকারের উচিত পোশাক রপ্তানির ওপর কর আরোপ করা।

বিজিএমইএর সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, এখন দোষ চাপানোর সময় নয়। সবাই মিলে কাজ করতে হবে। যেসব কারখানা ভবনের ওপরে বা ছাদে জেনারেটর স্থাপন করবে, তাদের সদস্যপদ স্থগিত করা হবে।

মেট্রো চেম্বারের সভাপতি রোকেয়া আফজাল রহমান বলেন, ‘শ্রমিকদের নিরাপত্তা সুসংহত করার এটা সর্বোচ্চ সময়। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে এই মাটিতে আর রানা প্লাজার মতো ঘটনা ঘটবে না।’ তিনি আরও বলেন, রানা প্লাজা কোনো দুর্ঘটনা নয়, এটা অবহেলা।
উল্লেখ্য, গত মাসে সাভারে রানা প্লাজা ধসে পাঁচটি পোশাক কারখানায় সহস্রাধিক শ্রমিকের প্রাণহানি ঘটে।

এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের সভাপতি ফজলুল হক বলেন, অনেক ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক ক্রেতাদের দ্বৈতনীতি সমস্যা তৈরি করে।

বাংলাদেশ সেন্টার ফর ওয়ার্কার্স সলিডারিটির নির্বাহী পরিচালক কল্পনা আক্তার বলেন, গণমাধ্যম সঠিকভাবেই রানা প্লাজার প্রাণহানির ঘটনা তুলে ধরেছে। এটা কোনো নেতিবাচক প্রচারণা নয়।

http://prothom-alo.com/detail/date/2013-05-31/news/356453

 

Speech