Policy Research Institute - PRI Bangladesh

The Policy Research Institute of Bangladesh (PRI) is a private, nonprofit, nonpartisan research organization dedicated to promoting a greater understanding of the Bangladesh economy, its key policy challenges, domestically, and in a rapidly integrating global marketplace.

পিআরআইয়ের সংলাপে বিশেষজ্ঞরা

News Published: Sunday, Jun 01, 2014

পিআরআইয়ের সংলাপে বিশেষজ্ঞরা

বিনিয়োগে ভারসাম্যহীনতায় সামষ্টিক অর্থনীতিতে ঝুঁকি বাড়াচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২০১৪-০৫-২৯ ইং

দেশের অর্থনীতিতে সরকারি ও বেসরকারি বিনিয়োগে ভারসাম্যহীনতা বিরাজ করছে, যা সামষ্টিক অর্থনীতিতে ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। এ ধরনের ঝুঁকি মোকাবেলায় সামনের দিনগুলোয় জ্বালানি ও পরিবহন অবকাঠামোর উন্নয়ন জরুরি। এ ছাড়া রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আনয়ন ও উদ্যোক্তাদের আস্থাহীনতা দূরীকরণে কার্যকর নীতি প্রণয়ন ও এর বাস্তবায়ন করতে হবে। এজন্য দ্রুততম সময়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়ন, সুশাসন ও তদারকি প্রতিষ্ঠানে কর্মদক্ষতা বাড়াতে হবে।

গতকাল রাজধানীতে ডিএফআইডি ও ইউএসএআইডির প্রধান অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে সংলাপে এসব কথা বলেন বিশেষজ্ঞরা। পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআই) এবং ইইকেএইডের যৌথ আয়োজনে এ সংলাপে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ডিএফআইডির প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. স্টেফান ডারকন ও ইউএসএআইডির প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. স্টিফেন ও’কনেল। ‘চ্যালেঞ্জ অ্যান্ড প্রসপেক্টাস অব দ্য বাংলাদেশ ইকোনমি’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পিআরআইয়ের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর।

তিনি বলেন, গত অর্থবছরের তুলনায় এবার বেসরকারি বিনিয়োগ কমেছে ১ দশমিক ২ শতাংশ। গত অর্থবছরে জাতীয় আয়ের ২০ শতাংশ বেসরকারি বিনিয়োগ হলেও এবার তা নেমে এসেছে ১৮ দশমিক ৯ শতাংশে। অন্যদিকে সরকারি বিনিয়োগ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২৬ দশমিক ৮ শতাংশ। বিনিয়োগের এ ধরনের ভারসাম্যহীনতা প্রবৃদ্ধি অর্জনে কাঙ্ক্ষিত ভূমিকা রাখতে পারছে না। স্বাধীনতার পর থেকে জাতীয় আয়ে বিনিয়োগ ও সঞ্চয় অনুপাত এবং মোট দেশজ উৎপাদন সমান্তরালভাবে বেড়েছে। অথচ চলতি অর্থবছরে সে ধারা বিঘ্নিত হচ্ছে।
সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এবিএম মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, দেশে রেমিট্যান্স আসার হার ঊর্ধ্বমুখী হলেও এখনো জনপ্রতি রেমিট্যান্স প্রবাহে সর্বনিম্ন তালিকায় বাংলাদেশ। সামষ্টিক অর্থনীতিতে শক্তিশালী অবস্থান তৈরিতে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা অর্জনের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি করতে হবে। এছাড়া রফতানি বাজারে বহুমুখিতা প্রয়োজন।

সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, সরকারি বিনিয়োগের মাধ্যমে দ্রুত সময়ে অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। কেননা এ ধরনের বিনিয়োগে বেশি মাত্রায় দুর্নীতি, অদক্ষতা, রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। বর্তমান সরকার বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়ানোয় নজর না দিয়ে এ ধরনের অদক্ষ ব্যয় বাড়াতে সচেষ্ট। ফলে অর্থনীতিতে এক ধরনের ভারসাম্যহীনতা তৈরি হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ হাসান জামান বলেন, দেশের সামগ্রিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে দ্রুততার সঙ্গে বড় অবকাঠামো বিশেষ করে পদ্মা সেতু, ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন মহাসড়ক, রাজধানীর গণপরিবহন ব্যবস্থায় নেয়া প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দীন আহমেদ বলেন, সরকারি নীতিমালায় ধারাবাহিকতা দরকার। তাছাড়া আর্থিক ব্যবস্থানায়ও দুর্বলতা রয়েছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন কিংবা রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর দুর্বলতার কারণে অদক্ষতা বাড়ছে। তাই সামষ্টিক অর্থনীতির উন্নয়নে তদারকি প্রতিষ্ঠান ও কমিশনগুলোকে সক্রিয় হতে হবে।

বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) গবেষণা পরিচালক ড. বিনায়ক সেন বলেন, ‘দেশে দারিদ্র্যের হার গত কয়েক বছরে কমছে। কিন্তু তাদেরকে মধ্যবিত্ত আয়ে উন্নীত করতে পারছি না। ফলে জীবনমানে পরিবর্তন আনতে এ বিষয়ে নীতিমালা প্রণয়ন দরকার।’

বিশ্বব্যাংকের লিড ইকোনমিস্ট ড. জাহিদ হোসেন বলেন, সামষ্টিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবকাঠামো উন্নয়ন এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ, যা প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাধাগ্রস্ত করছে।

ড. মসিউর রহমান বলেন, অবকাঠামো, সেবা, কানেক্টিভিটি, ভূমি ব্যবস্থাপনা এবং জ্বালানি ও শক্তি খাতের সমস্যা সমাধানে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তাছাড়া শিক্ষা ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনার মাধ্যমে সুষ্ঠু জাতি গঠনেও পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে বিনিয়োগ ও সঞ্চয়ে প্যারাডক্স চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়ানো গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়েছে। তবে বেসরকারি উদ্যোক্তারা অর্থায়ন সমস্যায় ভুগছেন। তাছাড়া এখন সুদের হারের চেয়ে ব্যবসায়িক পরিবেশটা উন্নত করা গুরুত্বপূর্ণ।

http://www.bonikbarta.com/2014-05-29/news/details/2731.html

Speech